,
সংবাদ শিরোনাম :

পেঁপে খেলে হতে পারে গর্ভপাত!

সময় সংলাপ ডেস্ক

পেঁপে, যার আর এক নাম অমৃততুন্বী। এটি অত্যন্ত পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ একটি ফল। কাঁচা বা পাকা দুইভাবেই এই ফলের জুড়ি মেলা ভার। অনেকভাবেই এই ফলটি খাওয়া যায়। এমনকি এই ফল সবজি হিসেবেও আমরা রান্না করে থাকি। নামের জন্য নয়, গুণ বিচারের একজন চিকিৎসক বলেন, ‘১০০ গ্রাম পেঁপেতে শর্করা থাকে ৭.২ গ্রাম, খাদ্যশক্তি ৩২ কিলোক্যালরি, ভিটামিন সি ৫৭ মিলিগ্রাম, সোডিয়াম ৬.০ মিলিগ্রাম, পটাশিয়াম ৬৯ মিলিগ্রাম, খনিজ ০.৫ মিলিগ্রাম এবং ফ্যাট মাত্র ০.১ গ্রাম। এই উপাদানগুলো শুধু শরীরের চাহিদাই মেটায় না, রোগ প্রতিরোধেও অংশ নেয়।’ আবার ডেঙ্গুজ্বর রোধে কার্যকর পেঁপেগাছের পাতা। এতে রয়েছে ব্যাকটেরিয়া ও ছত্রাকরোধী গুণাবলী। এসব তথ্য পুষ্টিবিজ্ঞানে স্বীকৃত।

শুধুই যে উপকার রয়েছে সে কথা পুরোপুরি সঠিক নয়। পেঁপে কিছু ক্ষেত্রে ক্ষতিও করতে পারে। এত গুণের মাঝেও এই ফলের কিছু খারাপ দিকও আছে। যেমন- গর্ভবতী নারীদের পেঁপে এবং আনারস খেতে মানা করা হয়।

একটা স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইট থেকে জানা গেছে পেঁপে অত্যন্ত পুষ্টিকর হলেও এর বীজ ও শেকড় গর্ভপাত ঘটাতে পারে। কাঁচাপেঁপে জরায়ু সংকুচিত করে ফেলে। পাকা পেঁপেতে এই ঝুঁকি কিছুটা কম। তবে গর্ভবতী হলে পেঁপে এড়িয়ে চলাই ভালো। পুষ্টিকর বলে কোনকিছুই অতিরিক্ত খাওয়া উচিত নয়। পেঁপে অতিরিক্ত খেলে খাদ্যনালীর উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে। দিনে এক কাপের বেশি পেঁপে খাওয়া উচিত নয়।

পেঁপে পাতায় থাকা ‘পাপাইন’ নামক উপাদান গর্ভের সন্তানের জন্য বিষাক্ত হতে পারে। সন্তান বুকের দুধ খাওয়ানোর বয়সে মায়ের পেঁপে খাওয়া ক্ষতিকর কি না তা নিশ্চিত নয়। তবে সাবধানের মার নেই, তাই গর্ভাবস্থায় এবং সন্তান জন্মের কয়েক মাস পর্যন্ত পেঁপে এড়িতে চলা উচিত। এছাড়াও কাঁচাপেঁপের বোটা থেকে বের হওয়া সাদা তরল চামড়ায় অ্যালার্জির সৃষ্টি করতে পারে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের যারা ওষুধ খান তাদের জন্য পেঁপে বিপজ্জনক হতে পারে।

সব ক্রিয়ারই একটা বিপরীত প্রক্রিয়া থাকে। আর এটাই স্বাভাবিক। তাই সব কিছু সম্পর্কে ভালোভাবে জেনে তারপর নিয়ম মত খেলে কোনো সমস্যা হওয়ার ঝুঁকি থাকবে না। এজন্য একটা নিয়ম মত খাদ্যাভাস এবং সচেতনতা পারে সুস্থ্য রাখতে।


প্রতিদিন সব ধরনের খবর জানতে ও মজার মজার ভিডিও দেখতে আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক কমেন্ট শেয়ার করে এক্টিভ থাকুন -বাংলাদেশ অনলাইন, পত্রিকা, সময় সংলাপ ডট কম,আমাদের ফেইসবুক পেজ লাইক দিতে নিচে ফেইসবুক লাইক বটন এ ক্লিক করুন ,অনেক ধন্যবাদ আবার আসবেন

sponser