,
সংবাদ শিরোনাম :

আমন মৌসুমে সর্বোচ্চ ফলন দিয়েছে বিনা-১৬

সময় সংলাপ ডেস্ক

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার মহেশপুর গ্রামের কৃষক হাফিজ মৃধা এই আমন মৌসুমে বিনা-১৬ ধানের আবাদ করে আশাতীত ফলন পেয়েছেন— সমকাল

আমন মৌসুমে বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট উদ্ভাবিত নতুন জাতের স্বল্প জীবনকাল সম্পন্ন বিনা ধান ১৬ আমন মৌসুমে সবচেয়ে বেশি ফলন দিয়েছে।

প্রতি হেক্টরে এ জাতের ধানের অন্তত ৫.৯৭ মেট্রিক টন ফলন হয়েছে বলে গোপালগঞ্জ বিনা উপকেন্দ্র থেকে জানানো হয়েছে।

গোপালগঞ্জ বিনা উপকেন্দ্র জানিয়েছে, এ বছর এ কেন্দ্রের তত্ত্বাবধানে গোপালগঞ্জ ও ফরিদপুরে ৩০ একর জমিতে ৭৫টি প্রদর্শনী প্লটে এ ধানের আবাদ করা হয়। স্বল্প মেয়াদ সম্পন্ন এ জাতের ধান রোপনের একশ’ দিনের মাথায় কাটা হয়। মাঠ দিবসে এসব প্রদর্শনী প্লটের ধান কেটে পরিমাপ করে প্রতি হেক্টরে ৫.৯৭ টন ফলন পাওয়া গেছে। আমন মৌসুমে প্রচলিত জাতের তুলনায় এটি সবচেয়ে বেশি ফলন দিয়েছে বলে ওই উপকেন্দ্র জানিয়েছে।

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার মহেশপুর গ্রামের কৃষক মো. হাফিজ মৃধা বলেন, ‘এ বছর আমি বিনা-১৬ জাতের ধান আবাদ করেছি। প্রচলিত আমনের তুলনায় এ ধানের বাম্পার ফলন পেয়েছি। এ ধান প্রচলিত আমনের একমাস আগে কাটা যায়। বাজারে ধানের দাম ভালো পাওয়া যায়। এ ধানের আবাদের পর সরিষা, কলাই বা মসুরের আবাদ করা যায়। একই জমিতে বছরে ৩ ফসল উৎপাদন করে অমরা আরো লাভবান হতে পারি।’

একই উপজেলার পশ্চিম মাঝিগাতী গ্রামের কৃষক খোন্দকার সিদ্দিক বলেন, ‘প্রচলতি আমনে রোগবালাই হয়। কিন্তু বিনা-১৬ জাতের ধানে কোনো রোগ বালাই নেই। ধানের ফলন দেখে আমাদের এ ব্লকের কৃষকরা আগামীতে এ ধানের আবাদ করতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন।’

উপজেলার সমসপুর গ্রামের কৃষক মঞ্জুর হোসেন শেখ বলেন, ‘বিনা-১৬ ধান স্বল্প সময়ে ক্ষেত থেকে কাটা যায়। এছাড়া এ ধানের বীজ পরবর্তী বছরের চাষাবাদের জন্য সংরক্ষণ করা যায়। এ জাতের ফলন যেকোনো জাতের তুলনায় বেশি। এ ধানের চাল চিকন ও ভাত খেতে সুস্বাদু। এসব কারণে আমরা আমন মৌসুমে এখন থেকে বিনা-১৬  ধান আবাদ করবো।’

গোপালগঞ্জ বিনা উপকেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সেফাউর রহমান বলেন, বিনার এসআরএসডি প্রকল্পের অর্থায়নে, গোপালগঞ্জ বিনা উপকেন্দ্রের তত্ত্বাবধানে ও কৃষি সম্প্রসারণের সহযোগিতায় গোপালগঞ্জ ও ফরিদপুরে বিনা-১৬ জাতের ধান আবাদ করে কৃষক আমন মৌসুমে প্রচলিত ধানের তুলনায় সবচেয়ে বেশি ফলন পেয়েছেন। এতে কৃষক লাভবান হয়েছেন। এ ধানের জীবনকাল স্বল্প। স্বল্প মেয়াদকালের ধান কম ফলন পাওয়ার কথা। কিন্তু ট্রায়েলে এ ধানের বাম্পার ফলন হয়েছে।

কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এইচ এম খায়রুল বাসার বলেন, স্বল্প মেয়াদকালের বিনা-১৬ ধান আবাদ করে কৃষক একই জমিতে বছরে অন্তত তিনটি ফসল ফলাতে পারবেন, যা কৃষকদের আর্থসামাজিক অবস্থার পরিবর্তন ঘটাতে ভূমিকা রাখবে।


প্রতিদিন সব ধরনের খবর জানতে ও মজার মজার ভিডিও দেখতে আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক কমেন্ট শেয়ার করে এক্টিভ থাকুন -বাংলাদেশ অনলাইন, পত্রিকা, সময় সংলাপ ডট কম,আমাদের ফেইসবুক পেজ লাইক দিতে নিচে ফেইসবুক লাইক বটন এ ক্লিক করুন ,অনেক ধন্যবাদ আবার আসবেন

sponser