,
সংবাদ শিরোনাম :

ক্ষমা চাইলেন টুইঙ্কল, জবাব দিলেন মল্লিকা: বিনোদন- এর আরো খবর

সময় সংলাপ ডেস্ক

অক্ষয় কুমার ও মল্লিকা দুয়া বিতর্কে নিজেকে জড়ানোর জন্য ক্ষমা চাইলেন টুইঙ্কল খান্না। এই বিতর্কে তাঁর সন্তানকে জড়িয়েও বিভিন্ন ট্রোল করা হয়।

এ বিষয় সমালোচনাও করেন তিনি।বলেন, গত সপ্তাহে অক্ষয় ও মল্লিকাকে নিয়ে বিতর্কের সূত্রপাত হয়। এই বিতর্কের মধ্যে আমি নিজেকে জড়িয়ে ফেলেছি। তাও সেটা কোনও সোশাল কমেন্টেটর হিসেবে নয়, বরং অক্ষয়ের স্ত্রী হিসেবে। বিতর্ক নিয়ে আমি যে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছি তা পুরোটাই আবেগের বশে। কোনও কিছু না ভেবেই মন্তব্য করেছি। এর জন্য আমি ক্ষমা চাইছি।

দা গ্রেট ইন্ডিয়ান লাফটার শোটি চালান অক্ষয়। সেখানে সহকারী বিচারক রয়েছেন মল্লিকা দুয়া।

শোয়ের শুটিং চলাকালীন কোনও এক প্রসঙ্গে অক্ষয় নাকি মল্লিকাকে লক্ষ্য করে বলেন, আপ বেল বাজাও, ম্যায় আপকো বাজাতা হুঁ। এই অংশে আপত্তি তোলেন বিনোদ। তাঁর মেয়ের কাছে অক্ষয়কে ক্ষমা চাইতে বলেন তিনি। এরপরই মুখ খুলেছিলেন স্ত্রী টুইঙ্কল। স্বামীর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন।তিনি লিখেছিলেন, অক্ষয়ের বাজাও শব্দটা এত বেশি করে ধরার কিছু নেই। এক রেডিও স্টেশনের ট্যাগলাইন হচ্ছে বাজাতে রহো। তাহলে সেক্ষেত্রে কী হবে? তখন তো অশ্লীল অর্থে বাজাও শব্দকে ধরা হয় না। আর যদি অক্ষয়ের কথার আক্ষরিক অর্থ ধরা হয় তাহলে তো বিনোদ দুয়ার ব্যবহৃত শব্দও খুব অপমানজনক। (অক্ষয়কে লক্ষ্য করে “আই অ্যাম গোয়িং টু স্ক্রিউ দিজ সার্টেন অক্ষয়”, এই বাক্যটি ব্যবহার করেছিলেন মল্লিকার বাবা বিনোদ দুয়া। )

টুইঙ্কলকে স্বামীর পাশে দাঁড়াতে দেখে সরব হয় নেটিজেনরা। অনেকেই বলেন, স্বামীকে অন্ধভাবে সমর্থন করতে গিয়ে তিনি নারীবাদী অবস্থান থেকে সরে এসেছেন। আর এরপরই সোশাল সাইটে ক্ষমা চেয়েছেন টুইঙ্কল।

এমনকী, তাঁর ৫ বছরের মেয়েকে কীভাবে এই বিতর্কে জড়ানো হয়েছে সে বিষয় সমালোচনাও করেন। থেমে থাকেননি মল্লিকাও। নাম না করেই টুইটারে পালটা মন্তব্য করেন তিনি।


প্রতিদিন সব ধরনের খবর জানতে ও মজার মজার ভিডিও দেখতে আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক কমেন্ট শেয়ার করে এক্টিভ থাকুন -বাংলাদেশ অনলাইন, পত্রিকা, সময় সংলাপ ডট কম,আমাদের ফেইসবুক পেজ লাইক দিতে নিচে ফেইসবুক লাইক বটন এ ক্লিক করুন ,অনেক ধন্যবাদ আবার আসবেন

sponser