,
সংবাদ শিরোনাম :

রুপের অহংকার করা ভাল না

সময় সংলাপ ডেস্ক

-রুপের অহংকার করা ভাল না
মেয়েটার নাম কলি সে ছিলো অনেক সুন্দরী। তার রুপের তুলনা ছিলো না। সে ছিলো এলাকার মধ্যে সব চেয়ে সুন্দরী মেয়ে। তার জন্য এলাকার শত শত ছেলে পাগল ছিলো————!
কলির বাড়ি পাশে একটা ছেলে থাকতো, ছেলেটার নাম নুর, সে দেখতে সুন্দর ছিল না। সে ছিল অনেক কালো, কিন্তু কলির জন্য পাগল ছিল অনেক ছেলে। তাদের মধ্যে নুর ও ছিলো একজন। তার খুব ভালো লাগতো কলি কে, হয়তো ভালোও বাসতো—————–
একদিন নুর জানতে পারলো কলির বিয়ের কথা বার্তা হচ্ছে, কথাটা শুনার পর সে এক দিন তার বাবা-মা কে নিয়ে কলির বাড়িতে বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে গেলো———-!
কলির বাবা-মা এর কথা শুনে মনে হলো ওনারা প্রস্তাবে রাজি। আর হবেই না কেনো, ভালো পরিবারের, চেনা জানা ছেলে, সরকারি একটা জব করে, ছেলেও অনেক ভালো। রাজি না হওয়ার কোন কারন ছিলো না———–!!
কিন্তু কলি রাজি হয়না, সে নুর কে সেইদিন অনেক অপমান করে, তার বাবা মা এর সামনে।
কলি তাকে বলে তোমার মতো ছেলে কে আমি বিয়ে করবো কি করে ভাবলে, আয়নায় নিজের চেহারা দেখেছো কখনো, তুমি হলে কয়লা আমি হলাম হীরা। তোমার সাথে আমার চলবে কি করে। কয়লা আর হীরা কি এক হতে পারে। আমার জন্য কতো হ্যান্ডসাম সুন্দর ছেলে পাগল হয়ে আছে, আর আমি তোমাকে বিয়ে করতে যাবো কোন দুঃখে। কি ভেবে তুমি বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে আসলে————!
নুর কোন কথা না বলে চুপচাপ তাদের বাড়ি থেকে বের হয়ে আসে, কলির কথায় সে অনেক কষ্ট পায়। তার কথা হলো আমি বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে আসছি, যদি আমাকে পছন্দ না হয় তাহলে সুন্দর ভাবে বলে দিলেই পারতো যে তোমাকে আমার পছন্দ না। আমরা চলে আসতাম। কিন্তু কালো বলে আমার বাবা-মার সামনে অপমান করাটা তার মোটেও ঠিক হয়নি—————–!
নুর সেই দিন কিছুই বলে না তাকে, তাদের বাসা থেকে বের হয়ে আকাশের দিকে তাকিয়ে মনে মনে বলে হে আল্লাহ আমাকে কেনো কালো সৃষ্টি করলে। অন্য ছেলেদের মতো সুন্দর হ্যান্ডসাম সৃষ্টি করলে না কেনো———–!!
এর দুই মাস পরে নুর পুস্প নামের একটা মেয়ে কে বিয়ে করে সুখে জীবন যাপন শুরু করে। তার বিয়ে ৫মাস পর কলির ও বিয়ে হয়ে যায়। ছেলে দেখতে অনেক সুন্দর । অনেক বড় ঘরের ছেলে। তার বিয়ের পর সেও সুখে জীবন-যাপন শুরু করে————=!
কিন্তু কলির বিয়ের ৬বছর পর এক দুরঘর্টনায় তার সমস্ত সুখ কেড়ে নেয়। প্রতিদিনের মতো একদিন রান্না করতে গেলে গ্যাস সিলেন্ডার ফেটে তার গায়ে আগুন লেগে যায়। এতে তার শরীর পুড়ে যায়। তার চেহারাও অনেক খানি পুড়ে যায়।
কলির পুরো শরীর দেখে তার স্বামী বলে তার সাথে ঘর কোন দিনও সম্বব না, তাই তার স্বামী তাকে তালাক দেয়, তালাক দেয়ার পর আবার বিয়ে করে। আর কলি এখন তার বাপের বাড়ি থাকে।
যে মেয়ে রুপের অহংকারে মাটিতে পা পড়তো না‘ আজ সেই রুপের কারনে স্বামী ঘর ছাড়া হয়েছে, সন্তান ছাড়া হয়েছে। যাকে দেখতে শত শত ছেলে পাগল ছিলো, আর এখন কোন ছেলে ভুলেও তাকায় না। তার চেহারা দেখলে ঘৃণা করে।
আল্লাহ আপনাকে অপূর্ব সৌন্দর্য দিয়ে সৃষ্টি করেছেন তাই বলে সেই সৌন্দর্য রুপ নিয়ে কখনো অহংকার করবেন না। আল্লাহ যেমন আপনাকে সৌন্দর্য দিয়ে সৃষ্টি করেছেন, তেমনি আপনার এই রুপ সৌন্দর্য আপনার থেকে কেড়েনিতে এক মিনিটও সময় লাগবে না। তাই মানুষের রুপ দেখতে নেই, মন দেখতে হয়…………
ভুলত্রুটি মার্জনীয়
ধন্যবাদ।


প্রতিদিন সব ধরনের খবর জানতে ও মজার মজার ভিডিও দেখতে আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক কমেন্ট শেয়ার করে এক্টিভ থাকুন -বাংলাদেশ অনলাইন, পত্রিকা, সময় সংলাপ ডট কম,আমাদের ফেইসবুক পেজ লাইক দিতে নিচে ফেইসবুক লাইক বটন এ ক্লিক করুন ,অনেক ধন্যবাদ আবার আসবেন

sponser