,
সংবাদ শিরোনাম :

পৃথিবীর সব জায়গা বাবার চেয়ে মায়ের মূল্য বেশি কেন

সময় সংলাপ ডেস্ক

লেখা : নুছরাত জাহান
.
পৃথিবীর সব জায়গা বাবার চেয়ে মায়ের মূল্য বেশি কেন না মায়ের পায়ের নিচে সন্তানের বেহেশত।

.
আমরা মায়ের ভালোবাসা কে বড় করে দেখি।
কিন্তু একবারও বাবার রাগের আড়ালে ভালোবাসা কে অনুভব করি না।
আর করার চেষ্টা ও করি না।
.
আমরা যখন ছোট ছিলাম বাবা আমাদের পড়ালেখা নিয়ে ভীষণ বকা দিতো
স্কুলে না গেলে প্রাইভেট না গেলে অনেক বকা দিতো। আর মা আমাদের বাবার বকার হাত থেকে রক্ষা করত । তখন আমরা মনে করি বাবা আমাদের ভালোবাসে না মা আমাদের ভালোবাসে।
.
ঘুরতে গেলে বা ফ্রেন্ড এর সাথে আড্ডা দিলে বকা দিতো তখনই বাবার প্রতি রাগ হতো।
বাবা আমাদের ভালোবাসে না ।
.
একবার ও কি ভেবে দেখেছি ?
বাবা কেন এত বকা দেয় ?
না আমরা ভেবে দেখি না।
উল্টো বাবার বকা গুলো কে বড় করে দেখেছি।
.
আমি মানছি বাবা আমাদের মায়ের চেয়ে ও বেশি বকা দেয় ।
কিন্তু বাবা না থাকলে আমরা কেউ মানুষ হতে পারতাম না।
বাবার বকা গুলো আছে বলে শত শত ছাত্র ছাত্রী ডাক্তার ইঞ্জিনিয়ার হতে পারছে ।
.
বাবার বকা না খেলে আমরা কখনও স্কুলে যেতাম না ।
আড্ডাই মেতে থাকতাম । সব সময় ফাঁকি দেওয়ার চেষ্টা করতাম স্কুল প্রাইভেট থেকে।
.
বাবা আমাদের কত চেষ্টা করে মানুষের মত মানুষ করার জন্য ।বাবা চায় না আমরা খারাপ বন্ধুদের সাথে মিশে খারাপ হই।
কথায় আছে না সত্সঙ্গে স্র্গবাস
আর অসত্সঙ্গে নরক বাস।
.
নিজে সারা দিন পরিশ্রম করে ছেলে মেয়েদের ভালো স্কুল ,কলেজ ভর্তি করিয়েছে। নিজের জন্য কিছু নেওয়ার আগে ছেলে মেয়েদের জন্য নিয়েছে।
সব সময় মাথায় হাজার চিন্তা ছেলেমেয়ে কে কি করে পড়ালেখার করাবে ?
.
অনেক বাবা আছে রিকশা চালিয়ে ও ছেলেমেয়ে কে Varsity ভর্তি করিয়েছে।
নিজের খরচ কমিয়ে মাথার ঘাম পায়ে পেলে।
কঠোর পরিশ্রম করে ছেলে মেয়ে কে পর্যাপ্ত পরিমাণ টাকা দেয় ।
.
আর আমরা সেই টাকা খরচ করতে একবার ও ভাবি না টাকা গুলো উপার্জন হয় কীভাবে ?
বন্ধু বান্ধবী নিয়ে আনন্দ উল্লাস করে
টাকা উড়িয়ে থাকি ।
.
আমাদের বুঝা উচিত ছিল না ?
আমাদের ও খরচ কমিয়ে বাবার জন্য কিছু কিনে দেওয়া ।
বাবার প্রিয় খাবার বানিয়ে দেওয়া ?
বাবা যখন দিন শেষে বাড়িতে ফিরে আসে তখন বাবা খেয়েছে কিনা ?
ঠিক মতো ওষুধ খেয়েছে কিনা।
মাঝে মাঝে বাবা কাজে যতটুকু সম্ভব সাহায্য করা।
বাবাদের বেশি কিছু প্রয়োজন হয় না।
শুধু সামান্য কেয়ার।
.
রাস্তায় কোনো মেয়ে কে বকা দিলে হাজার জনতা ভিড় জমিয়ে পেলে ।
মেয়েরা মায়ের জাত কীভাবে এত অসম্মান করছেন অমুক তমুক ইত্যাদি ।
.
কিন্তু একটা ছেলেকে যখন রাস্তায় অসম্মান করা হয় তখন কোথায় যায় জনতা ?
তখন দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে তামাশা দেখে।
কেউ এসে বলে না ছেলেরা বাবার জাত।
.
পৃথিবীর প্রত্যেক ছেলেরাই কারো না কারো বাবা .ভাই অথবা . স্বামী ।
একটা পুরুষ কে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে অসম্মান হতে না দেখে ।
তাকে বিপদ থেকে বাঁচানো প্রত্যেকের কর্তব্য ।
.
আমরা বাঙালি জাতি এমনই দাঁত থাকতে দাঁতের মর্যাদা বুঝি না।
.
একদিন ঠিকই বুঝবো যেই দিন আমাদের বকা দেওয়ার কেউ থাকবে না।
খারাপ কাজে নিষেধ আর ভালো কাজে আদেশ করার মতো কেউ থাকবে না।
আমাদের প্রত্যেকের উচিত বাবা দের সম্মান করা।
বাবাদের আদেশ মেনে চলা কেন না।
বাবাদের আদেশ মানলে কখন ও খারাপ হবে
না বরং আমাদের ভালো হবে।
মায়ের পায়ের নিচে যেমন বেহেশত।
ঠিক তেমনই বাবার বুক হলো ২য় বেহেশত।

ভালো থাকুক পৃথিবীর সমস্ত ।


প্রতিদিন সব ধরনের খবর জানতে ও মজার মজার ভিডিও দেখতে আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক কমেন্ট শেয়ার করে এক্টিভ থাকুন -বাংলাদেশ অনলাইন, পত্রিকা, সময় সংলাপ ডট কম,আমাদের ফেইসবুক পেজ লাইক দিতে নিচে ফেইসবুক লাইক বটন এ ক্লিক করুন ,অনেক ধন্যবাদ আবার আসবেন

sponser