,
সংবাদ শিরোনাম :

বাংলাদেশ দ্রুত মধ্যম আয়ের রাষ্ট্রে উন্নীত হতে যাচ্ছে

সময় সংলাপ ডেস্ক

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ দ্রুত মধ্যম আয়ের রাষ্ট্রে উন্নীত হতে যাচ্ছে। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত রাষ্ট্রে উন্নীত হতে প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শী ভিশন নিয়ে দেশ এখন এগিয়ে চলেছে।

মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট কিথ হ্যানসেন, অ্যানেট্টে ডিক্সনের সঙ্গে দুটি পৃথক বৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন।

বুধবার স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের তথ্য কর্মকর্তা পরীক্ষিৎ চৌধুরী সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

গত কয়েক বছরে দারিদ্র্য বিমোচন, যোগাযোগ অবকাঠামো, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, বিদ্যুৎ, কৃষি, তথ্য ও প্রযুক্তি খাতের উল্লেখযোগ্য সাফল্যের ধারাবাহিকতা ধরে রেখে বাংলাদেশ তার কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সফল হবে বলে আশা ব্যক্ত করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

ওয়াশিংটনে বিশ্বব্যাংকের উদ্যোগে চলমান ‘নলেজ শেয়ারিং ইভেন্ট ২০১৭’ সম্মেলনে অংশ নিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। মঙ্গলবার তিন দিনব্যাপী এ সম্মেলন শুরু হয়।

সহিংসতার কারণে পালিয়ে আসা মিয়ানমারের নাগরিকদের বাংলাদেশে আশ্রয় দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খাদ্য ও চিকিৎসার যে উদ্যোগ নিয়েছেন তার প্রশংসা করেছেন বিশ্বব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তারা আশ্রিত রোহিঙ্গাদের সহায়তা অব্যাহত রাখার আশ্বাস দিয়েছেন। দ্রুত রোহিঙ্গাদের চিকিৎসা সহায়তা দেওয়ার সফল পদক্ষেপ নেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান তারা।

মোহাম্মদ নাসিম এ সময় স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশের অর্জন তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বড় বড় শহরগুলোতে বিশ্বমানের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার পাশাপাশি উপজেলা, ইউনিয়ন এমনকি গ্রাম পর্যায়ের তৃণমূল দরিদ্র মানুষের জন্য মৌলিক স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার। গ্রামের ওয়ার্ড পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্ভাবন কমিউনিটি ক্লিনিক কার্যক্রম আজ সারা বিশ্বে উদাহরণ হিসেবে দেখানো হচ্ছে। যেখানে সাধারণ মানুষ বিনামূল্যে প্রাথমিক চিকিৎসা এবং ৩২ রকমের ওষুধ পাচ্ছে। কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্যতথ্য সংরক্ষণ হচ্ছে এবং প্রয়োজনে রাজধানীর চিকিৎসকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে চিকিৎসা নেওয়ার ব্যবস্থা করেছে সরকার। তিনি ২০৩০ সালের মধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের লক্ষ্যে সরকারের গৃহীত কর্মসূচিগুলোর সফল বাস্তবায়নে বিশ্বব্যাংকের সহায়তা কামনা করেন।

বিশ্বব্যাংকের কর্মকর্তারা স্বাস্থ্য খাতে বাংলাদেশের সাফল্য, বিশেষ করে কমিউনিটি ক্লিনিক কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করে এ খাতে তাদের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

বাংলাদেশের গ্রামীণ স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়নের পাশাপাশি শহরাঞ্চলের বস্তিগুলোতে স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন আরো তৎপর হওয়ার জন্য পরামর্শ দেন বিশ্বব্যাংকের কর্মকর্তারা। স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশের শহরের বস্তিগুলোর স্বাস্থ্যমান উন্নয়নে স্থানীয় সরকার বিভাগ মূল ভূমিকা রাখে। এই ব্যবস্থা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে এনে একটি সমন্বিত স্বাস্থ্যব্যবস্থা গড়ে তোলা যায় কি না সরকার তা বিবেচনা করছে।

এ সময় বিশ্বব্যাংকের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক মোশাররফ হোসেন, যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জিয়াউদ্দিন, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগের সচিব ফয়েজ আহম্মেদ, অর্থ মন্ত্রণালয় ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিবসহ বাংলাদেশ সরকার ও বিশ্বব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


প্রতিদিন সব ধরনের খবর জানতে ও মজার মজার ভিডিও দেখতে আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক কমেন্ট শেয়ার করে এক্টিভ থাকুন -বাংলাদেশ অনলাইন, পত্রিকা, সময় সংলাপ ডট কম,আমাদের ফেইসবুক পেজ লাইক দিতে নিচে ফেইসবুক লাইক বটন এ ক্লিক করুন ,অনেক ধন্যবাদ আবার আসবেন

sponser