,
সংবাদ শিরোনাম :

নঈমুদ্দিন, আফুসির পর মামিচ

সময় সংলাপ ডেস্ক

প্রথম লেগ শেষ হওয়ার আগেই চলে গেছেন মোহামেডানের ভারতীয় কোচ সৈয়দ নঈমুদ্দিন। প্রিমিয়ার ফুটবল লীগের মাঝপথে শেখ জামাল ছেড়ে ‘উধাও’ নাইজেরিয়ান কোচ জোসেফ আফুসি। ঢাকায় নিজের ফ্ল্যাট ছেড়ে লন্ডনে ফিরে গেছেন তিনি। এই রেশ কাটতে না কাটতেই চলে গেলেন ঢাকা আবাহনীর ক্রোয়েশিয়ান কোচ দ্রাগো মামিচ। ২২শে নভেম্বর ঢাকা মোহামেডানের বিপক্ষে ম্যাচ খেলার পর ঢাকা ছাড়েন এই কোচ। ছুটি কাটানোর কথা বলে গেলেও ক্রোয়েশিয়ান এই কোচ খুঁজে নিয়েছেন নতুন ক্লাব। মামিচের নতুন ঠিকানা থাইল্যান্ডের ক্লাব চাইনাট হর্নবিল।
চলতি মৌসুমে ফেডারেশন কাপ শুরুর দু’তিনদিন আগে মোহামেডানে যোগ দেন সৈয়দ নঈমুদ্দিন। ব্রাদার্স ছেড়ে মোহাডোনে আসা এই ভারতীয় কোচ শুরু থেকেই স্বস্তিতে ছিলেন না ক্লাবটিতে। ক্লাব ম্যানেজমেন্ট থেকে শুরু করে ফুটবলারদের সঙ্গে সম্পর্কটা ভালো ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক এই কোচের। তাই প্রথম লেগের আগে ছুটিতে গেলে তাকে আর আনার আগ্রহ দেখায়নি মোহামেডান। বর্ষীয়ান এই কোচও আর মোহামেডানে ফিরতে চাননি। এক প্রকার কোচবিহীন মোহামেডান ১৪তম রাউন্ড শেষে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে আছে তালিকার ছয় নম্বরে। এদিকে লীগের ১৪তম রাউন্ড শুরুর দু’দিন আগে হঠাৎ নিখোঁজ শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের কোচ জোসেফ আফুসি। ই-মেইলে পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে যাওয়ার আগে নাইজেরিয়ান কোচ জানিয়ে গেছেন, ‘লন্ডন ফিরে যাচ্ছি, সেখানে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাবো। নতুন চাকরি খুঁজবো, আর সেটাই ভালো হবে আমার জন্য।’
আফুসির হঠাৎ বিদায়ে শেখ জামালের ম্যানেজিং কমিটির চেয়ারম্যান মনজুর কাদের ক্ষুব্ধ হয়ে ফিফায় যাওয়ারও হুমকি দিয়েছিলেন। ‘আফুসির এমন করার কোনো কারণ নেই। আমরা তাকে অগ্রিম অনেক টাকা দিয়ে রেখেছিলাম। তিনি দলের সবার সঙ্গে সব সময় ভালো ব্যবহার করেছেন। তিনি কেন এভাবে চলে যাচ্ছেন, তা বুঝতেই পারছি না’-বলেন তিনি। তবে আফুসির বিদায়ের পর শেখ জামাল অবশ্য বসে থাকেনি। বাংলাদেশের বয়সভিত্তিক জাতীয় দলের কোচ মাহবুব হোসেন রক্সিকে নিয়োগও দিয়েছে পয়েন্ট টেবিলের দুই নম্বরে থাকা ক্লাবটি।
আফুসির মতো কাউকে কিছু না বলে চলে গেছেন আবাহনীর কোচ দ্রাগো মামিচও। গত বৃহস্পতিবার মামিচের নতুন ঠিকানার কথা জানা গেছে। থাইল্যান্ডের প্রিমিয়ার লীগে সদ্য ওঠা চাইনাট হর্নবিলে যোগ দিয়েছেন এই ক্রোয়েশিয়ান কোচ। দলটির সঙ্গে আনুষ্ঠানিক চুক্তিও হয়ে গেছে তার। এর অর্থ হলো প্রিমিয়ার লীগে আবাহনীকে কোচ ছাড়াই খেলতে হবে এখন। আসলে ‘হঠাৎ’ চলে গেলেও মামিচের সঙ্গে আবাহনীর আনুষ্ঠানিক চুক্তি নভেম্বরেই শেষ হয়েছে। মৌখিকভাবে লীগের বাকি ম্যাচ ও এএফসি কাপে দলের দায়িত্ব পালন করার কথা ছিল তার। কিন্তু থাইল্যান্ডে নতুন প্রস্তাব পাওয়ায় আবাহনীর সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ আর বাড়ানোর প্রয়োজন মনে করেননি তিনি।
ঢাকা আবাহনীর ম্যানেজার সত্যজিত দাশ রুপু জানান, ‘মামিচের সঙ্গে আমাদের চুক্তি নভেম্বরেই শেষ হয়েছে। তবে তিনি লীগের বাকি ম্যাচ ও এএফসি কাপে দলের দায়িত্ব পালন করে যাবেন, এমনই কথা ছিল। কিন্তু ছুটির কথা বলে থাইল্যান্ডে নতুন ক্লাবে যোগ দেয়ায় আমরা অবাক হয়েছি।’ থাইল্যান্ডের ক্লাবে যোগ দেয়া মামিচ ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে আবাহনীর সঙ্গে চুক্তি বাড়াননি বলেও জানান রুপু, ‘ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে তিনি আমাদের সঙ্গে চুক্তি বাড়াতে চাননি। ঢাকা থেকে চলে যাওয়ার পর এক বার্তায় নিজের অপারগতার কথা বলেছেন। তবে তার এভাবে চলে যাওয়াটা ঠিক হয়নি। আমাদের কাছে বললে সম্মানের সঙ্গে চলে যেতে দিতাম তাকে।’ জর্জ কোটানের উত্তরসূরি ছিলেন দ্রাগো মামিচ। এএফসি কাপে মোহনবাগানের সঙ্গে ড্র কিংবা বেঙ্গালুরুকে হারিয়েছে আবাহনী তার অধীনে। এছাড়া ফেডারেশন কাপ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার রেকর্ড আছে তার। বর্তমানে লীগে আবাহনী ১৪ ম্যাচে ৩০ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে।


প্রতিদিন সব ধরনের খবর জানতে ও মজার মজার ভিডিও দেখতে আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক কমেন্ট শেয়ার করে এক্টিভ থাকুন -বাংলাদেশ অনলাইন, পত্রিকা, সময় সংলাপ ডট কম,আমাদের ফেইসবুক পেজ লাইক দিতে নিচে ফেইসবুক লাইক বটন এ ক্লিক করুন ,অনেক ধন্যবাদ আবার আসবেন

sponser