,
সংবাদ শিরোনাম :

মুক্তিযুদ্ধের ছবিতে অভিনয়ে আমার অন্যরকম ভালোলাগা

সময় সংলাপ ডেস্ক

আমার বাবা সৈয়দ মোজাফফর আলী একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন। তাই মুক্তিযুদ্ধের ছবিতে অভিনয়ে আমার অন্যরকম ভালোলাগা কাজ করে। এখন পর্যন্ত আমি এ জাতীয় বেশ কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করেছি। ২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারি বাবা মারা যান। তার কাছে ছোটবেলায় মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনতাম। আর অভিনেত্রী হিসেবে যখন এ ধরনের ছবির শুটিংয়ে যেতাম তখন মনের মধ্যে দেশপ্রেমটা বেশি কাজ করত আমার।

কথাগুলো বলছিলেন অভিনেত্রী শাহনূর। বড় ও ছোট পর্দা দুই মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরেই নিয়মিত কাজ করছেন তিনি। বিজয়ের মাসে মুক্তিযুদ্ধের বিষয় নিয়ে কথা বলতে গিয়ে তিনি আরো বলেন, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গল্পের ছবিতে সামনে আরো কাজ করার ইচ্ছে আছে আমার। জাহিদ হোসেনের পরিচালনায় ‘জীবন যন্ত্রণা’, ফারুক হোসেনের ‘কাকতাড়ুয়া’ এবং সারোয়ার ভাইয়ের ‘লাবু এলো শহরে’ নামে তিনটি ছবির কাহিনী মুক্তিযুদ্ধের ওপর ভিত্তি করে। আমার অভিনীত এ ছবি তিনটি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। এগুলো মুক্তি পেলে আমার বিশ্বাস দর্শকের বেশ ভালো লাগবে। ছোটবেলা থেকে ছড়া, গান, নাচের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকা শাহনূর টেলিভিশন পত্রিকার ফটোসুন্দরী নির্বাচিত হয়েছিলেন। এরপর ডাক পান চলচ্চিত্রে। চিত্রনায়ক রুবেলের বিপরীতে ২০০০ সালে ‘জিদ্দি সন্তান’ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় এ পর্দাকন্যার। ছবিটি পরিচালনা করেন জিল্লুর রহমান ময়না। এরপর তার অভিনীত ৫০টির মতো ছবি মুক্তি পেয়েছে। প্রয়াত মান্নাসহ শাকিব খান, রিয়াজ, রুবেলসহ অনেক জনপ্রিয় নায়কের বিপরীতে অভিনয় করেছেন তিনি। বড় পর্দার পাশাপাশি ছোট পর্দায়ও নিয়মিত অভিনয় করছেন শাহনূর। বর্তমান কাজ নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ছোট পর্দার জন্য হাসান জাহাঙ্গীরের পরিচালনায় ‘অ্যাকশন গোয়েন্দা’, শাহীনের নির্দেশনায় ‘এই শহরে আর থাকা হলো না’ নামে দুটি নাটকে কাজ করলাম। কাজ দুটি করে বেশ ভালো লেগেছে। এছাড়া আমার অভিনীত ‘নীড় খোঁজে গাংচিল’, ‘আশা নিরাশার মাঝে’ ও ‘নন্দিনী’ নামে তিনটি ধারাবাহিক নাটক এখন প্রচার হচ্ছে। বাণিজ্যিক ছবির নায়িকা শাহনূর মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গল্পের পাশাপাশি অভিনয় করেছেন বিকল্পধারার কিছু ছবিতেও। আর সামনেও নারীপ্রধান গল্প বা একটু ভিন্ন ধরনের কাহিনীর ছবিতে কাজের আগ্রহ আছে বলে জানালেন তিনি। শাহনূর এ প্রসঙ্গে বলেন, এখন ভিন্ন ধরনের কাজ করতে চাই। আরো ভালোভাবে বলতে গেলে শাবানা আপার ‘ভাত দে’, ববিতা আপার ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’ কিংবা মৌসুমী আপার ‘মেঘলা আকাশ’-এ ধরনের ভিন্ন গল্পের ছবি এবং চরিত্রে কাজ করতে আগ্রহী আমি। এ ধরনের কাজ এখন খুবই কম হচ্ছে। সামনে এমন কিছু কাজের প্রস্তাব পেলে আমি অবশ্যই করতে চাই। অভিনয়ের বাইরে শাহনূর সেবামূলক প্রতিষ্ঠান কিডনি ফাউন্ডেশন, মানবাধিকার সোসাইটির সঙ্গে কাজ করেন বলেও জানান। চলচ্চিত্রাঙ্গনে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন এ অভিনেত্রী। বর্তমানে বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের বাজার খুব একটা ভালো না। তবে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র আবারো ঘুরে দাঁড়াবে বলে মনে করেন শাহনূর। এবার একটু ভিন্ন প্রসঙ্গ। সেটা হচ্ছে বিয়ে। শাহনূরের বিয়ে ঘিরে চলতি বছর একটি সংবাদ চারদিকে ছড়িয়ে পড়ে। সেটা হচ্ছে কাউকে না জানিয়ে গোপনে লন্ডনের এক প্রবাসীকে বিয়ে করেছেন তিনি। পরে সবাইকে জানান যে, এটা একটি মিথ্যে খবর। তাকে নিয়ে বিয়ের গুজব ছড়ানো হচ্ছে। তবে নতুন বছরে বিয়ে নিয়ে তার কোনো পরিকল্পনা সত্যিই আছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিয়ে নিয়ে এখন কোনো চিন্তা নেই আমার। সেই সময় আমার বিয়ের খবরটি মিথ্যে ছিল। আমি আমার জন্মদিনের অনুষ্ঠানই সবাইকে দাওয়াত দিয়ে পালন করার চেষ্টা করি। আর বিয়ে তো ধুমধাম করে সবাইকে জানিয়েই করব। এ বিষয়টি অন্তত গোপন রাখব না।

প্রতিদিন সব ধরনের খবর জানতে ও মজার মজার ভিডিও দেখতে আমাদের ফেইসবুক পেজে লাইক কমেন্ট শেয়ার করে এক্টিভ থাকুন -বাংলাদেশ অনলাইন, পত্রিকা, সময় সংলাপ ডট কম,আমাদের ফেইসবুক পেজ লাইক দিতে নিচে ফেইসবুক লাইক বটন এ ক্লিক করুন ,অনেক ধন্যবাদ আবার আসবেন

sponser